সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০

করনার পর আরেক বিপদজনক রোগ “প্লেগ” চিনে

করনার পর আরেক বিপদজনক রোগ “প্লেগ” চিনে
করনার পর আরেক বিপদজনক রোগ “প্লেগ” চিনে

করোনার পর আবার আরো একটি মারাত্মক রোগের রোগী পাওয়া গেছে চিনে।চিনের উত্তরে বুবোনিক প্লেগ রোগ ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা সামনে এসেছে।এখনেই যথাযথ কর্তৃপক্ষে গ্রহণ না করলে এই রোগ মহামারি আকার নিতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।প্লেগ রোগ দেখা দেওয়ায় চিন সরকার সর্তকবার্তা জারি করে এমনটাই জানিয়েছে চিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।
 শনিবার বায়ান্নুরের একটি হাসপাতালে সন্দেহজনক একটি প্লেগে আক্রান্ত হওয়া ঘটনা সামনে এসেছে।যার ফলে প্রশাসনিক মহলে বেশ হইচই পড়ে যায়।ফলশ্রুতিতে রবিবার প্লেগ প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণে বায়ান্নুর এবং ইনার মঙ্গোলিয়া অটোনমাশ রিজিয়নে লেভেল-থ্রি সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।এবছরের শেষ পর্যন্ত এই নির্দেশিকা জারি থাকবে।
বুবোনিক প্লেগ একটি ভয়াবহ ব্যাকটেরিয়াঘটিত রোগ। সঠিক সময়ে চিকিৎসা না হলে মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোনো প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির এতে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।
চীনের স্বাস্থ্য দফতরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বর্তমানে শহরে প্লেগ রোগ মহামারির আকার নেওয়ার মতো আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষকে আত্মসুরক্ষায় তৎপর এবং সচেতন থাকতে হবে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিষয়ে কোনো অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে তা স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্র বা সংশ্লিষ্ট সরকারি অফিসে জানাতে হবে।
ভিন্ন এক প্রতিবেদনে শিনহুয়া জানিয়েছে, পশ্চিম মঙ্গোলিয়ার খোভদ প্রদেশে সম্প্রতি দুই বাবোনিক প্লেগ রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে একজনের বয়স ২৭ বছর এবং অন্য জনের বয়স ১৭ বছর। তাঁরা সম্পর্কে দুই ভাই। ওই প্রদেশেরই দু'টি আলাদা হাসপাতালে দু'জনের চিকিৎসা চলছে। তাঁদের সংস্পর্শে আসা আরও ১৪৬ জনকে চিহ্নিত করে আইসোলেট করা হয়েছে। হাসপাতালে তাঁদের চিকিৎসা চলছে।
ওই দুই ভাই মারমোটের মাংস খেয়ে বুবোনিক প্লেগে আক্রান্ত হয়েছেন। সেখান থেকে রোগ ছড়ায়। এ কারণে মারমোটের মাংস না খাওয়ার জন্য় প্রশাসন থেকে বলা হয়েছে।

তথ্য সুত্রঃ news24bd.tv

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন